রাশিয়ায় বিষ্ণুর প্রাচীন বিগ্রহ আবিষ্কার

প্রকাশ: ১৮ জুলাই ২০২৩ | ১:৫৮ অপরাহ্ণ আপডেট: ১৮ জুলাই ২০২৩ | ১:৫৮ অপরাহ্ণ

এই পোস্টটি 80 বার দেখা হয়েছে

রাশিয়ায় বিষ্ণুর প্রাচীন বিগ্রহ আবিষ্কার

রাশিয়ার একটি পৌরাণিক গ্রামে সম্প্রতি এক বৈজ্ঞানিক খননকার্যে এক বিষ্ণু বিগ্রহ আবিষ্কৃত হয়েছে।

বিশ্বখ্যাত নিউজ এজেন্সী রাউটার এর তথ্য মতে বিষ্ণু বিগ্রহটি রাশিয়ার ভলগা অঙ্গরাজ্যে পাওয়া গেছে। সম্প্রতি মস্কো নিউজে এ খবরটি  নিয়ে দীর্ঘ প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

রাশিয়ার সবচেয়ে প্রাচীন এবং কিভ শহরের চেয়েও পুরনো শহর হচ্ছে “স্টরয়া মাইনা”। ধারণা করা হচ্ছে, এটি প্রায় ১৭০০ বছরের পৌরাণিক শহর এবং সপ্তম ও দশম শতাব্দীর বহু স্থাপত্য নিদর্শন সেখানে বিদ্যমান। তাই এ শহরকে রাশিয়ার সকল শহরের ‘মাতা’ বলে সম্বোধন করা হয়। আর উক্ত ভলগা প্রদেশকে প্রাচীন রাশিয়ার মূর্ত প্রতীক রূপে বিবেচনা করা হয়। এই প্রদেশ নিয়ে ইতোমধ্যে বহু বিজ্ঞানী নতুন কোন উপাত্ত সংগ্রহের আশায় বৈজ্ঞানিক গবেষণাকর্ম  সম্পন্ন করেছেন। গবেষণাকর্মে প্রাচীন রাশিয়ার চিত্র ফুটে উঠেছে সুন্দরভাবে।

চৈতন্য সন্দেশ অ্যাপ ডাউনলোড করুন :https://play.google.com/store/apps/details?id=com.differentcoder.csbtg

আশ্চর্যকরভাবে, প্রাচীন রাশিয়ার এই প্রদেশটিতে বৈদিক সভ্যতার অনেক মিল খুঁজে পাওয়া গেছে। রাশিয়ার “উলয়ানোভস্ক স্টেট ইউনিভার্সিটি” এর আর্কিওলজি ডিপার্টমেন্টের অধ্যাপক ড. আলেকজান্ডার কোজহিভিন উপরোক্ত গবেষণার নেতৃত্ব দিয়েছেন। তিনি গত সাত বছর যাবৎ “স্টরয়া মাইনা” নামক অঞ্চলে গবেষণাকর্ম সম্পাদন করছেন। গবেষণার সুবিধার্থে খনন কার্যের জন্য সামারা নদীর নিকটবর্তী এই অঞ্চলের কোন স্থানই তিনি অবশিষ্ট রাখেননি। খননকার্য সম্পাদনের সময় আবিষ্কৃত বিষ্ণু বিগ্রহ ছাড়াও গবেষকগণ প্রাচীন মুদ্রা, আংটি, যুদ্ধের সরঞ্জাম, ও প্রাচীন অলঙ্কার খুঁজে পেয়েছেন। গবেষকগণ বলেন যে, এই শহরটি কমপক্ষে আট হাজার বছরের পুরাতন এবং এটি দশবার জনবসতী শূন্য হয়েছিল। প্রাচীন রূপ জনগণ কিভ শহর ও নিকটবর্তী ইউক্রেন দেশটি নির্মাণ করেছিল । বিষ্ণু বিগ্রহ আবিস্কারের মাধ্যমে প্রাচীন রাশিয়ার বৈদিক সভ্যতার পরিচয় পাওয়া যায়। এছাড়া বৈদিক শাস্ত্র মতে আমরা জানতে পারি যে, বৈদিক যুগে সমগ্র পৃথিবীতে মানুষ সনাতন ধর্মানুসারী ছিলেন এবং সকলেই ভগবান শ্রীবিষ্ণুর আরাধনা করতেন। রাশিয়াতে সম্প্রতি এক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে উক্ত গবেষণাকর্ম সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। সম্মেলনে উপস্থিত অধিকাংশ বিজ্ঞানী মত প্রকাশ করেন যে, উক্ত গবেষণাকর্মে প্রতিবেদন লক্ষ্য করে উপলব্ধি করা যাচ্ছে যে, খুব শীঘ্রই রাশিয়ার প্রাচীন ইতিহাস সম্পর্কে পুরনো ধারণা পাল্টাতে হবে।

সম্পর্কিত পোস্ট

‘ চৈতন্য সন্দেশ’ হল ইস্‌কন বাংলাদেশের প্রথম ও সর্বাধিক পঠিত সংবাদপত্র। csbtg.org ‘ মাসিক চৈতন্য সন্দেশ’ এর ওয়েবসাইট।
আমাদের উদ্দেশ্য
■ সকল মানুষকে মোহ থেকে বাস্তবতা, জড় থেকে চিন্ময়তা, অনিত্য থেকে নিত্যতার পার্থক্য নির্ণয়ে সহায়তা করা।
■ জড়বাদের দোষগুলি উন্মুক্ত করা।
■ বৈদিক পদ্ধতিতে পারমার্থিক পথ নির্দেশ করা
■ বৈদিক সংস্কৃতির সংরক্ষণ ও প্রচার। শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।
■ শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।