১৯৭,৫৩,২০,০০০

প্রকাশ: ১ অক্টোবর ২০২১ | ১০:৪১ পূর্বাহ্ণ আপডেট: ১ অক্টোবর ২০২১ | ১০:৪১ পূর্বাহ্ণ

এই পোস্টটি 244 বার দেখা হয়েছে

১৯৭,৫৩,২০,০০০

এখন বৈবস্বত মনুর কাল চলছে। এই সময়েই শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভু এই ধরাধামে আবির্ভূত হন। (প্রথমে অষ্টাবিংশতি দিব্যযুগের দ্বাপরের শেষভাগে শ্রীকৃষ্ণ আবির্ভূত হন এবং তারপর সেই দিব্যযুগেরই কলিযুগে শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর আবির্ভাব হয়।) শ্রীকৃষ্ণ ও শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভু ব্রহ্মার এক দিনে একবার, অর্থাৎ চতুর্দশ মন্বন্তরের মধ্যে একবার আবির্ভূত হন। প্রতিটি মন্বন্তরের আয়ুষ্কাল একাত্তর দিব্যযুগ। (৪৩২,০০,০০,০০০ বছর সমন্বিত ব্রহ্মার এক দিনের মধ্যে ছয়জন মনুর আবির্ভাব ও তিরোভাবের পর শ্রীকৃষ্ণ আবির্ভূত হন। অর্থাৎ, ব্রহ্মার এক দিনের ১৯৭,৫৩,২০,০০০ বছর অতিক্রান্ত হলে শ্রীকৃষ্ণ আবির্ভূত হন। সৌরবর্ষ অনুসারে এই জ্যোতিষ গণনাটি করা হয়েছে।
(চৈ.চ আদি ৩/১০)

সম্পর্কিত পোস্ট

‘ চৈতন্য সন্দেশ’ হল ইস্‌কন বাংলাদেশের প্রথম ও সর্বাধিক পঠিত সংবাদপত্র। csbtg.org ‘ মাসিক চৈতন্য সন্দেশ’ এর ওয়েবসাইট।
আমাদের উদ্দেশ্য
■ সকল মানুষকে মোহ থেকে বাস্তবতা, জড় থেকে চিন্ময়তা, অনিত্য থেকে নিত্যতার পার্থক্য নির্ণয়ে সহায়তা করা।
■ জড়বাদের দোষগুলি উন্মুক্ত করা।
■ বৈদিক পদ্ধতিতে পারমার্থিক পথ নির্দেশ করা
■ বৈদিক সংস্কৃতির সংরক্ষণ ও প্রচার। শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।
■ শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।