বিশ্ব সেবায় ইসকন (পাট-১)

প্রকাশ: ২ ডিসেম্বর ২০১৯ | ১২:২৯ অপরাহ্ণ আপডেট: ২ ডিসেম্বর ২০১৯ | ১২:২৯ অপরাহ্ণ

এই পোস্টটি 2168 বার দেখা হয়েছে

বিশ্ব সেবায় ইসকন (পাট-১)

সমগ্র বিশ্ব এখন এক বিরাট হুমকির সম্মুখীন। কেননা পৃথিবাতে বেচে থাকার জন্য
সমস্ত প্রাকৃতিক সম্পদ বা উপাদান মানব জাতিকে সহায়তা প্রদান করে সেছে।
টিকিয়ে রাখাটাই বর্তমানে এক বিরাট চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর প্রকৃতির বর্তমান এই অসহায় অবস্থার জন্য দায়ী একমাত্র মানুষই। তারাই দিনের পর দিন এই গ্রহকে
বসবাসের অযােগ্য করে তুলছে। সারাবিশ্বে বর্তমানে কিভাবে প্রকৃতিকে মানুষ বিপযস্ত 
করে তুলছে তার কিছু পরিসংখ্যান দেয়া হল।
পানি দূষণ : ১৯৭৯ সালে মেক্সিকোর উপসাগরে এক দূর্ঘটনায় ১৪০ মিলিয়ন
গ্যালন তেল নিঃসৃত হয়। যা উপসাগরের প্রায় ১০ ভাগই ছেয়ে যায়।
বিভিন্ন দুর্ঘটনার কবলে পড়ে গড়ে প্রতি বছর তেলবাহী জাহাজের মাধ্যমে ১২০ মিলিয়ন
গ্যালন তেল সাগর বা মহাসাগরে নিঃসৃত হয়।
সারাবিশ্বের প্রায় ১.৭৫ মিলিয়ন লােক শুধুমাত্র বিভিন্নভাবে পানি দূষণের ফলে দূষিত বা
অপরিশােধিত পানি পেয়ে থাকে।

সূত্রঃ Herman 1990 P.-13, Caplan et al.1990-P-98।

 

বায়ু দূষণ : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)  এবং জাতিসংঘের পরিবেশক অনুষ্টানে 
দেখানো হয় যে বিশ্বে প্রায় দুইতৃতীয়াংশ নগর জনগােষ্ঠি দূষিত বায়ুতে বসবাস করে

(তথ্যসূত্র-French-1990, P-109)

ওয়ার্ল্ড ওয়াচ ইনস্টিটিউটের লেস্টার ব্রাউনের বিবৃতি-“কেউ যদি ভারতের মুম্বাইয়ে।
বসবাস করে তবে সে যে পরিমাণ বায়ু প্রতিদিন গ্রহন করে তা দিনে দশটি সিগারেটের
ধোয়ার সম ক্ষতিকারক কেননা সেখানকার বায়ু এতটা দূষিত। (তথ্যসূত্রঃ hinrichsen
1988, P.-69)।
এথেন্সে দূষণমুক্ত দিনের তুলনায় দূষণযুক্ত দিনগুলােতে মৃত্যুর হার ৬ গুণ বেশি বায়ু দূষণ
এবং এর ফলশ্রুতিতে এসিড বৃষ্টির কারণে গ্রীসের বিভিন্ন শহরে গত ২৫ বছরে যতগুলো।
ঐতিহাসিক স্থাপত্য নিদর্শন ক্ষতি হয়েছে তা এরও পূর্বে ২,৫০০ বছরেও হয়নি।

সম্পর্কিত পোস্ট

‘ চৈতন্য সন্দেশ’ হল ইস্‌কন বাংলাদেশের প্রথম ও সর্বাধিক পঠিত সংবাদপত্র। csbtg.org ‘ মাসিক চৈতন্য সন্দেশ’ এর ওয়েবসাইট।
আমাদের উদ্দেশ্য
■ সকল মানুষকে মোহ থেকে বাস্তবতা, জড় থেকে চিন্ময়তা, অনিত্য থেকে নিত্যতার পার্থক্য নির্ণয়ে সহায়তা করা।
■ জড়বাদের দোষগুলি উন্মুক্ত করা।
■ বৈদিক পদ্ধতিতে পারমার্থিক পথ নির্দেশ করা
■ বৈদিক সংস্কৃতির সংরক্ষণ ও প্রচার। শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।
■ শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।