আপনার মেধা কি আপনার শত্রু?

0
159

আপনার মেধা কি জীবনের সকল সমস্যার সমাধান দিতে পারে? আপনি মেধাবী হওয়া সত্ত্বেও মানুষ কি আপনাকে ঘৃণা করে?

শুভবিলাস দাস


অনেকসময় মেধা আপনার জীবনে সুনাম নিয়ে আসে ঠিকই কিন্তু এই মেধা মানুষের মধ্যকার সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে কোন কাজে আসে না। তাই অনেক সময় সর্বাপেক্ষা মেধাবী ব্যক্তি হয়ে ওঠেন সর্বাপেক্ষা নিসঙ্গ ব্যক্তি।
এই পৃথিবীতে সমাজে তাল মিলাতে হলে মেধার সাথে সাথে ভাল আচরণ কিংবা মনোভাব আবশ্যক। মেধা দিয়ে যেকোনো জিনিস কিংবা প্রজেক্ট মুষ্টিবদ্ধ করা যায় কিন্তু মানুষ এবং মানুষের মধ্যকার সুসম্পর্ক বজায় রাখতে হলে ভাল আচরণ দরকার। মেধা আমাদের কাজের প্রকৃতি নির্ধারণ করে, কিন্তু আমাদের আচরণ যেকোনো কর্মের প্রতিক্রিয়া নির্ধারণ করে। মেধা হল ভগবান প্রদত্ত বৃষ্টির মতো, কিন্তু আমাদের মনোভাব হল একটি মানুষের তৈরি খামারের মতো। অনেকক্ষেত্রে মেধা হলো একটি বায়ু নিষ্কাশন যন্ত্রের মতো যা আমাদেরকে অহংকারে স্ফীত করে কিন্তু একটি ভাল চরিত্র হলো একটি মিটার পরিমাপের যন্ত্রের মতো যা সর্বদাই আমাদের অহংকারকে দমন করে এবং স্ফীত হওয়া থেকে বিরত রাখে। মহাভারতে কর্ণ ও অর্জুন উভয়েই সমান মেধাবী হওয়া সত্ত্বেও ভগবান শ্রীকৃষ্ণ অর্জুনকে পছন্দ করেছিলেন কেননা অর্জুনের ছিল একটি ভাল মনোভাব ও চরিত্র সম্পন্ন। সফলতা তাকে গর্বে স্ফীত করেনি কিংবা ব্যর্থতা তাকে হতাশায় নিমগ্ন করেনি। অন্যদিকে কর্ণ যেকোন মুহূর্তে তার ক্ষমতা নিয়ে গর্বিত হতেন এবং তার নিকৃষ্টতম জন্মের জন্য শোক প্রকাশ করতেন। কর্ণ তার হৃদয়ের অভ্যন্তরে থাকা নিরাপত্তাহীনতাকে ঢাকার জন্য মেধাকে ব্যবহার করতেন। সামনা সামনি ঘন ঘন মেধার প্রকাশ ঘটানো ব্যক্তির দূর্বলতার প্রকাশ ঘটায় এবং তার মনোভাব হয় নেতিবাচক।
একজন মেধাবী ব্যক্তি পরিপূর্ণতার দড়িতে আবদ্ধ থাকেন। তাই যখনই তিনি কোন লজ্জাজনক পরিস্থিতির সম্মুখিন হন (যেটি প্রত্যেকের জীবনের কোন এক সময়ে ঘটে থাকে), তখন তার অসীম মেধা থাকা সত্ত্বেও তিনি বিষণ্নতায় কুঁচকে যান এবং হতাশায় ফেটে পড়েন।
ভাল আচরণ বা মনোভাব থাকা একজন ব্যক্তি ঘুড়ির মত বহু উচ্চস্থানে উন্নীত হতে পারেন সমঝোতার সুতা দিয়ে এবং নিয়মানুবর্তিতার নাটাই দিয়ে। যদি তিনিও কোন হতাশায় নিমগ্ন হন তবে তার মেধা তা নিরসনে কাজে লাগবে না বরং তার যেকোনো পরিস্থিতি মেনে নেওয়ার ক্ষমতা তাকে শান্ত করবে কুল বাটনের মত। মেধা ছাড়াও জীবন অতিবাহিত হতে পারে কিন্তু ভাল আচরণ না থাকলে সম্পর্ক টিকে থাকে না। আত্ম পরিতোষণের যে মেধা আমাদের মধ্যে কঠোরতা নিয়ে আসে তা দিয়ে অন্যকে আকর্ষিত করা যায় না, কিন্তু আপনার হৃদয়ের অভ্যন্তরে থাকা নমনীয় ও কল্যাণময় উত্তম মনোভাব অন্যেকে আকৃষ্ট করতে পারে।
কোনো ব্যক্তি তাদের সকল খুঁত দূর করতে পারে না। তাই আমাদের সর্বদাই যে কোনো পরিস্থিতি মেনে নিয়ে কৃতজ্ঞ থাকতে হবে এবং সবকিছু ভগবানের কৃপা বলে গ্রহণ করতে হবে। এইপ্রকার ব্যক্তিগণ খুব সহজেই সকলের প্রতি নমনীয় ও বন্ধুভাবাপন্ন হন এবং অন্যর ওপর নির্ভরশীল হওয়ার কারণে তিনি সকলের ভালোবাসা লাভ করতে পারেন। তাই মেধাবী হওয়া ভাল কিন্তু মেধার জন্য গর্ববোধ থাকা উচিত নয়, ভাল আচরণের দ্বারা সকলের কাছে শ্রদ্ধাশীল হয়ে ওঠা অত্যন্ত সহজ।
লেখক পরিচিতি: শুভবিলাস দাস একজন প্রেরণাদায়ী বক্তা এবং পারমার্থিক জীবনযাপন কৌশলের শিক্ষক। এছাড়াও তিনি ৬ খণ্ডবিশিষ্ট রামায়ন গ্রন্থের লেখক।


 

অক্টোবর – ডিসেম্বর ২০১৬ ব্যাক টু গডহেড

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here