অদ্ভুত নাম্বার 0 9 1632 10 6 3 5

প্রকাশ: ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ | ৬:৩১ পূর্বাহ্ণ আপডেট: ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ | ৬:৩১ পূর্বাহ্ণ

এই পোস্টটি 1060 বার দেখা হয়েছে

অদ্ভুত নাম্বার 0 9 1632 10 6 3 5

 

আপনারা কি ভগবানের সাথে কথা বলতে চান?? সাক্ষাৎ করতে চান? তাহলে 0 9 1632 10 6 3 5 এই নাম্বারে ডায়েল করুন। এটা বৈকুণ্ঠের নাম্বার। তবে একটি নির্দিষ্ট নিয়মে ডায়েল করতে হবে। আসুন কিভাবে ডায়েল করবেন একটু জানিয়ে দিই। প্রথমে আছে 0,,
নিজে শূন্য হয়ে যান। অর্থাৎ অহংকার দূর করুন, আমীত্ত্ব দূর করুন।রক্তের গরম দেখালে চলবে না। আপনি মনে করুন প্রভূর নিত্য দাস। এরপর সংখ্যা আছে 9,,
এরপর আপনার মধ্যে– কীর্তনং, শরণং, অর্চনং, বন্দনং, দাস্য, সখ্য, মধুর, আত্মনিবেদং, বিষ্ণুপাদ সেবং- এই নবমিতা ভক্তির প্রকাশ ঘটবে। তারপর সংখ্যা আছে 1632 । ভক্তির প্রকাশ ঘটলে 16 নাম 32 অক্ষর মহামন্ত্র জপ করুন—-
হরে কৃষ্ণ হরে কৃষ্ণ কৃষ্ণ কৃষ্ণ হরে হরে।
হরে রাম হরে রাম রাম রাম হরে হরে ॥
এইভাবে অবিরাম জপ করতে থাকুন।
এরপর নাম্বার
আছে 10,,
মহামন্ত্র জপ করার ফলে — চক্ষু, কর্ণ, নাসিকা, জিহ্বা, ত্বক, বাক, পানি, পাদ, পায়ু, উপস্থ — এই দশটি ইন্দ্রিয় আপনার চরণ তলে বসীভূত হবে। তারপর নাম্বার আছে 6,,
– এরপর কাম, ক্রোধ, লোভ, মোহ, মদ আর মাৎসর্য্য – এই ষড়রিপু আপনার নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে।
এরপর নাম্বার আছে 3,,
এরপর দেহ, বুদ্ধি , মন এক করে দিন।
তারপর আছে 5,,
–ক্ষিতি, অপ, তেজ, মরুৎ, ব্যোম– এই পঞ্চভূতে গড়া দেহটা ভগবানের সাক্ষাৎ করতে পারে না। এই পঞ্চভূতে গড়া দেহটা পুড়ে ছাই হয়ে গিয়ে গঠিত হবে চিন্ময়ী দেহ। আর এই চিণ্ময়ী দেহটাই ভগবানের দর্শন পাবে। তবে নেটওয়ার্ক না থাকলে সম্ভব নয়। আর এখানে নেটওয়ার্ক হচ্ছে

সম্পর্কিত পোস্ট

‘ চৈতন্য সন্দেশ’ হল ইস্‌কন বাংলাদেশের প্রথম ও সর্বাধিক পঠিত সংবাদপত্র। csbtg.org ‘ মাসিক চৈতন্য সন্দেশ’ এর ওয়েবসাইট।
আমাদের উদ্দেশ্য
■ সকল মানুষকে মোহ থেকে বাস্তবতা, জড় থেকে চিন্ময়তা, অনিত্য থেকে নিত্যতার পার্থক্য নির্ণয়ে সহায়তা করা।
■ জড়বাদের দোষগুলি উন্মুক্ত করা।
■ বৈদিক পদ্ধতিতে পারমার্থিক পথ নির্দেশ করা
■ বৈদিক সংস্কৃতির সংরক্ষণ ও প্রচার। শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।
■ শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।