অচেতন অবস্থায় দেহ ত্যাগ করলে তার কি গতি হয়?

প্রকাশ: ১ ফেব্রুয়ারি ২০২২ | ৬:৪৪ পূর্বাহ্ণ আপডেট: ১ ফেব্রুয়ারি ২০২২ | ৬:৪৪ পূর্বাহ্ণ

এই পোস্টটি 165 বার দেখা হয়েছে

অচেতন অবস্থায় দেহ ত্যাগ করলে তার কি গতি হয়?

শ্রীমৎ জয়পতাকা স্বামী: আমরা জানি মৃত্যুর সময় যেরকম চিন্তা করবে সেই অনুসারে পরবর্তী দেহ লাভ হবে। যদি কেউ মৃত্যুকালে কৃষ্ণ চিন্তা করেন তাহলে তার গোলক ধামে গতি হবে। কিন্তু যে ব্যক্তি কোমায় বা সম্পূর্ণ অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে আছেন এবং সে অবস্থায় যদি তিনি দেহ ত্যাগ করেন তার কি গতি হবে?
উত্তর: শ্রীকৃষ্ণ বলেছেন, তিনি তাঁর ভক্তকে সহায়তা করেন। তাই যদি কেউ কৃষ্ণভক্ত হন যদিও তিনি অচৈতন্য অবস্থায় রয়েছে বা কোমায় থাকেন কৃষ্ণ তাকে সহায়তা করবেন। এ বিষয়ে আমার এক আর্জেন্টাইন শিষ্যা আছেন। কিন্তু তিনি লন্ডনে বসবাস করছেন। তিনি এসেছিলেন তাঁর পিতাকে দেখতে। সে সময় তাঁর পিতা কোমায় ছিলেন। আমার সেই শিষ্যার দিদি তাকে বললেন, তোমার বাবা এখন কোমায় আছে! অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে আছেন। এখন তুমি ধর্ম নিয়ে কি করবে? আরে, তোমরা আমাকে একটু সুযোগ দাও। আমি সবে কেবল এখানে এসে পৌছালাম (বোনোর উত্তর)। তার মাও সেখানে উপস্থিত ছিলেন। তখন তিনি (শ্রীমৎ জয়পতাকা স্বামীর শিষ্যা) সে স্থানে শ্রীমদ্ভগবদ্গীতা পাঠ করতে শুরু করলেন। পিতা ধীরে ধীরে স্মিতভাবে হাসতে লাগলেন। ডাক্তার, নার্স ও সবাই ছুটে এলেন। তারা কোনোদিন কাউকে কোমা অবস্থায় হাসতে দেখেননি। আমরা জানিনা তিনি কোথায় আছেন। কিন্তু নিঃসন্দেহে তিনি ভাল জায়গায় আছেন। কারণ তিনি হাসছেন। কিন্তু যখনই তিনি ভগবদ্গীতা পড়া বন্ধ করে দিতেন। তার পিতাও হাসা বন্ধ করে দিতেন। তখন তিনি তার দিদিকে, মাকে পালা করে গীতা পাঠ করাচ্ছিলেন এবং পিতা হাসতে থাকেন। হরিবোল!


 

চৈতন্য সন্দেশ জানুয়ারি-২০২২ প্রকাশিত
সম্পর্কিত পোস্ট

‘ চৈতন্য সন্দেশ’ হল ইস্‌কন বাংলাদেশের প্রথম ও সর্বাধিক পঠিত সংবাদপত্র। csbtg.org ‘ মাসিক চৈতন্য সন্দেশ’ এর ওয়েবসাইট।
আমাদের উদ্দেশ্য
■ সকল মানুষকে মোহ থেকে বাস্তবতা, জড় থেকে চিন্ময়তা, অনিত্য থেকে নিত্যতার পার্থক্য নির্ণয়ে সহায়তা করা।
■ জড়বাদের দোষগুলি উন্মুক্ত করা।
■ বৈদিক পদ্ধতিতে পারমার্থিক পথ নির্দেশ করা
■ বৈদিক সংস্কৃতির সংরক্ষণ ও প্রচার। শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।
■ শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।