১৮৯৬ সাল

প্রকাশ: ২২ জুলাই ২০২২ | ৮:১৮ পূর্বাহ্ণ আপডেট: ২২ জুলাই ২০২২ | ৮:১৮ পূর্বাহ্ণ

এই পোস্টটি 190 বার দেখা হয়েছে

১৮৯৬ সাল

শ্রীল ভক্তিবিনোদ ঠাকুর তাঁর রচিত বৈষ্ণবসাহিত্য প্রচার করেছিলেন। আমার মনে হয়, ১৮৯৬ খ্রিস্টাব্দে তিনি ভগবান শ্রীচৈতন্যদেবের শিক্ষাবলী সম্পর্কে তাঁর গ্রন্থটি পাশ্চাত্যে পাঠিয়েছিলেন, সেই গ্রন্থটি আমি ম্যাক্গিল বিশ্ববিদ্যালয়ে দেখেছি। আমি জানতাম না যে, সেইটি আমার জন্মেরও সাল ছিল, ১৮৯৬ খ্রিস্টাব্দ। যাইহোক, কোনো না কোনোভাবে, পরবর্তীতে ১৯২২ খ্রিস্টাব্দে আমি শ্রীল ভক্তিসিদ্ধান্ত সরস্বতি গোস্বামী মহারাজের সাক্ষাৎ লাভ করি এবং তিনি তৎক্ষণাৎ আমাকে জিজ্ঞেস করেন, “তুমি কেন পাশ্চাত্য দেশে গিয়ে ভগবান শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর আশীর্বাণী প্রচার করছ না’। … এইভাবে আমি সবার প্রথমে এটি নিউ-ইয়র্কে শুরু করি, তারপর সান্ফ্রান্সিস্কো, তারপর মন্ট্রিয়েল ও তারপর বোস্টন। এইভাবে আমাদের সারা বিশ্বজুঁড়ে এখন প্রায় একশত কেন্দ্র রয়েছে, আমেরিকাতেই চল্লিশটি কেন্দ্র। বড় বড় শহরে…”

(শ্রীল প্রভুপাদ প্রদত্ত প্রবচন, ১৫ অক্টোবর ১৯৭২ খ্র্রিঃ, শ্রীবৃন্দাবন)

 

মাসিক চৈতন্য সন্দেশ জুলাই ২০২২ হতে প্রকাশিত
সম্পর্কিত পোস্ট

‘ চৈতন্য সন্দেশ’ হল ইস্‌কন বাংলাদেশের প্রথম ও সর্বাধিক পঠিত সংবাদপত্র। csbtg.org ‘ মাসিক চৈতন্য সন্দেশ’ এর ওয়েবসাইট।
আমাদের উদ্দেশ্য
■ সকল মানুষকে মোহ থেকে বাস্তবতা, জড় থেকে চিন্ময়তা, অনিত্য থেকে নিত্যতার পার্থক্য নির্ণয়ে সহায়তা করা।
■ জড়বাদের দোষগুলি উন্মুক্ত করা।
■ বৈদিক পদ্ধতিতে পারমার্থিক পথ নির্দেশ করা
■ বৈদিক সংস্কৃতির সংরক্ষণ ও প্রচার। শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।
■ শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।