গাভী রক্ষায় ইউরোপে ১ম গো-খামার কনফারেন্স

0
26
ইউরোপের বিভিন্ন দেশে গাভী সংরক্ষণের উদ্দেশ্য বহু গো-খামার রয়েছে। শ্রীল প্রভুপাদ নির্দেশ দিয়েছেন বৃষ এবং গাভীদের যথাযথভাবে সেবা করার জন্য। এছাড়া তিনি আরো নির্দেশ দিয়ে গেছেন যে, যেহেতু বৃষ হাল চাষে সহযোগিতা করে আমাদের অন্নের সংস্থান করেন তাই তিনি আমাদের পিতা । অন্যদিকে গাভী আমাদেরকে দুধ দিয়ে বাঁচিয়ে রাখেন ঠিক যেভাবে আমাদের মা সন্তানের জন্য করেন। তাই গাভী আমাদের মাতা। উক্ত কনফারেন্সে ইংল্যান্ড, বেলজিয়াম, জার্মানি, চেকপ্রজাতন্ত্র, স্লোভেনিয়া, পোল্যান্ড, সুইডেন, হাঙ্গেরীসহ প্রভৃতি দেশের গো-খামার সেবা প্রদানরত ভক্তরা যোগদান করেন। এই কনফারেন্সের উদ্যোক্তা ছিলেন ইস্কনের ইউরোপে গাভী রক্ষা ও কৃষি মন্ত্রণালয়ের প্রধান শ্যামসুন্দর দাস। এছাড়া এই কনফারেন্সে ইউরোপের রয়েল সোসাইটি ফর দি প্রটেকশন অব ক্রুলটি টু এনিমেলস্ (RSPCA) অংশগ্রহণ করেন এবং ইস্কনের বিভিন্ন উদ্যোগের প্রশংসা করেন। সভায় উপস্থিত বক্তারা বিশ্বজুড়ে গো হত্যা বন্ধ এবং গো মাতার সেবায় আত্মনিয়োগ করতে সকলকে আহ্বান জানান। উল্লেখ্য, গো-মাতা আমাদেরকে অলৌকিক খাবার’ তথা দুগ্ধ প্রদান করেন যা সকল রোগের এন্টিবায়েটিক হিসেবে কাজ করে । এছাড়া গোবর বৈজ্ঞানিকভাবে জীবানুপ্রতিরোধক, স্বাস্থ্য ও মাটির উর্বরতা বর্ধক প্রমাণিত হয়েছে। এছাড়া গো-মূত্র ডায়াবেটিস সহ নানা রোগের কার্যকর ঔষধ। এছাড়া গোবর জ্বালানী হিসেবে এক বায়োগ্যাস উৎপাদনে ব্যবহৃত হয়

০১/০২/২০০৯

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here