‘শ্রীমদ্ভগবদ্গীতার শিক্ষা’ নতুন গ্রন্থের মোরক উন্মোচন

প্রকাশ: ৪ অক্টোবর ২০২১ | ৭:৩০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: ৪ অক্টোবর ২০২১ | ৭:৩০ পূর্বাহ্ণ

এই পোস্টটি 275 বার দেখা হয়েছে

‘শ্রীমদ্ভগবদ্গীতার শিক্ষা’ নতুন গ্রন্থের মোরক উন্মোচন

ললিত গৌর দাস: ইনস্টিটিউট অব বৈদিক স্টাডিজ, রংপুর, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ‘শ্রীমদ্ভগবদগীতার শিক্ষা’ নামক একটি গ্রন্থ সংকলন করেছি। এই সেবায় শ্রীমৎ ভক্তিপুরুষোত্তম স্বামী মহারাজ, শ্রীমৎ ভক্তিপ্রিয়ম্ গদাধর গোস্বামী মহারাজ ও বাংলাদেশের আরও দু’জন মহারাজসহ ইস্‌কন ন্যাশনাল কমিটির সদস্যবৃন্দের ও শ্রীপাদ অতুল কৃষ্ণ দাস প্রভুর আশির্বাদ রয়েছে। শ্রীমৎ ভক্তিপ্রিয়ম্ গদাধর গোস্বামী মহারাজ গত মাসে শ্রীল প্রভুপাদের ১২৫ তম আবির্ভাব তিথির পরের দিন, ১ সেপ্টেম্বর ২০২১‘শ্রীমদ্ভগবদগীতার শিক্ষা’ নতুন গ্রন্থের মোরক উন্মোচন করেন । এই গ্রন্থ পড়ে যে কেউ শ্রীমদ্ভগবদগীতার জ্ঞান ও শিক্ষা সম্বন্ধে সহজেই উপলব্ধি করতে সহায়ক হবে। আমাদেরকে উক্ত কোর্সটি পরিচালনা করার অনুমতি মহারাজবৃন্দ আশির্বাদ স্বরূপ প্রদান করেন। আমরা সর্বপ্রথম গত ৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ‘শ্রীমদ্ভগবদগীতার শিক্ষা কোর্স’ শুরু করি, তা ছয় সেশনে ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১ সমাপ্ত হয়। এই কোর্স শুভ উদ্বোধন করে, আর্শিবাদ প্রদান করেন শ্রীমৎ ভক্তিপ্রিয়ম্ গদাধর গোস্বামী মহারাজ। আরও আশির্বাদ প্রদান করেন শ্রীপাদ জগৎগুরু গৌরাঙ্গ দাস ব্রহ্মচারী। কোর্স শেষে মহরাজ ছাত্রদের উপলব্ধি শ্রবণ করেন। শিক্ষার্থীরা মহারাজকে বলেন, “এই কোর্স করে আমরা ভগবান যে শ্রীকৃষ্ণ তা জানতে পেরেছি, আমি দেহ নই চিন্ময় আত্মা, আমি ভগবানের নিত্য দাস, আমার কর্তব্য ভগবানের সেবা করা, ভগবানের নাম জপ করা, ভগবানকে প্রণাম করা।” আমরা আশাকরি, বাংলাদেশের অন্যান্য ইস্‌কন মন্দিরসমূহ এই গ্রন্থ নিয়ে ছাত্র-ছাত্রীসহ বিভিন্ন পেশার মানুষদের মাঝে
‘শ্রীমদ্ভগবদগীতার শিক্ষা কোর্স’ প্রদান করে তাদেরকে শ্রীল প্রভুপাদের সান্নিধ্যে নিয়ে আসতে ও তাদের পারমার্থিক জীবন প্রদান করতে সক্ষম হবেন। যদি কোনো মন্দির এই গ্রন্থ প্রচার করার জন্য, কোর্স প্রদান করার জন্য ও ভক্তিশাস্ত্রী কোর্সের শিক্ষার্থীদের প্রদান করার জন্য নিতে ইচ্ছুক থাকেন তাহলে যোগাযোগ করুন ০১৭২২৩৫৫১৬০ এই নাম্বারে ।


চৈতন্য সন্দেশ অক্টোবর-২০২১ প্রকাশিত

সম্পর্কিত পোস্ট

‘ চৈতন্য সন্দেশ’ হল ইস্‌কন বাংলাদেশের প্রথম ও সর্বাধিক পঠিত সংবাদপত্র। csbtg.org ‘ মাসিক চৈতন্য সন্দেশ’ এর ওয়েবসাইট।
আমাদের উদ্দেশ্য
■ সকল মানুষকে মোহ থেকে বাস্তবতা, জড় থেকে চিন্ময়তা, অনিত্য থেকে নিত্যতার পার্থক্য নির্ণয়ে সহায়তা করা।
■ জড়বাদের দোষগুলি উন্মুক্ত করা।
■ বৈদিক পদ্ধতিতে পারমার্থিক পথ নির্দেশ করা
■ বৈদিক সংস্কৃতির সংরক্ষণ ও প্রচার। শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।
■ শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।