শূন্য

0
445

যে ‘শূন্য’(০) অংকটি আমরা গণিতে ব্যবহার করে থাকি তার উৎপত্তি কোত্থেকে এ সম্পর্কে অনেক লোকেরই অজানা। ‘শূন্য’ সম্পর্কে বৈদিক সংস্কৃত বিভিন্ন গ্রন্থে উল্লেখিত হয়েছিল আজ থেকে বহু বছর পূর্বে। এটি পিনগালাক চন্দ্র সূত্রেও (২০০AD) ব্যাখ্যা করা হয়েছে। ব্রহ্মগুপ্তের (৪০০-৫০০AD) ব্রহ্মপুথ সিদ্ধান্তেও এটি বর্ণিত আছে। অপরদিকে ভাস্করাচার্য x/o = & এবং এ অসীমাকে ভাগ করা হলে তা অসীম থেকে যায় এর তত্ত্ব আবিস্কার করেন। গুজরাটে শূণে সম্পর্কিত প্রাচীন কিছু তথ্যও আবিস্কৃত হয়। পরবর্তীতে শূন্য আরবিক গ্রন্থে প্রকাশিত হয় ৭৭০ AD তে এবং ভারত থেকে ইউরোপে ৮০০ AD তে এই অংকের ধারণাটি নিয়ে যায় এবং সেখানে তার প্রচলন শুরু করে।

SHARE
পূর্বের আর্টিক্যাল৩৬৫ দিন
পরের আর্টিক্যালছক্কা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here