জ্বালানির উৎস গোবর

প্রকাশ: ২৩ মে ২০২৩ | ৬:২৪ পূর্বাহ্ণ আপডেট: ২৩ মে ২০২৩ | ৬:২৪ পূর্বাহ্ণ

এই পোস্টটি 104 বার দেখা হয়েছে

জ্বালানির উৎস গোবর

গোবর হতে পারে নবায়নযোগ্য শক্তির একটি অন্যতম উৎস। আমেরিকার টেক্সাস হচ্ছে বাছুর উৎপাদনের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ জায়গা। টেক্সাসের ফ্যানহ্যনডেল এ গোবর এর উপর একটি বড় গবেষনা অনুষ্ঠিত হয়। বছরের পর বছর ধরে গবেষকরা গোবরকে সার হিসেবে প্রাধান্য দিয়ে আসছে। কিন্তু এখন তারা এর অন্য ব্যবহারের দিকে দৃকপাত করেছেন কেননা যখন বড় বড় কারখানা গড়ে উঠছে তখন সারের ব্যবহার কমে যাচ্ছে। স্টেট এবং গোবর হচ্ছে প্রচুর ১ম পূঃ পর ফেডারেল শক্তি বিলেও নবায়নযোগ্য শক্তির উৎস সম্পর্কে আহ্বান করা হয়েছে। কয়লা এবং প্রাকৃতিক গ্যাসের পরিবর্তে বাস্প উৎপানের মাধ্যমে টারবাইন চালানোর ক্ষেত্রে গোবর ব্যবহার করা যেতে পারে। সেটা বিদ্যুৎ উৎপাদন করে। এভাবেই ডালাসের পান্ডা গ্রুপ আগামী বছর হার্ডফোর্ডে ১২০ মিলিয়ন ডলার ব্যয়ে ইথানল (CH2-CH2- OH) প্লাট স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে। এই কোম্পানী বলেছে যে, গোবর এবং আরও কিছু বর্জ্য পদার্থ সহযোগে ঐ প্লান্ট চালানোর জন্য জ্বালানি তৈরী করা যাবে। যার মাধ্যমে দিনে প্রায় ১০০০ ব্যারেল তৈল বাঁচানো সম্ভব হবে। টেক্সাসের অ্যামারিরোর কৃষি গবেষনা কেন্দ্রের পরিচালক জন সুইটেন বলেন, গোবর হচ্ছে শক্তির উৎস। এর মাধ্যমে ব্যারেল প্রতি তৈল-এ ৬০ ডলার বাঁচানো সম্ভব। গোবর হচ্ছে একটি নবায়নযোগ্য শক্তি যেখানে অন্তর্ভূক্ত আছে শস্য, খৈল, ভূষি, সয়াবিন এ সবকিছুকে ইথানলে রূপান্তর করা সম্ভব। যা কিছু রূপান্তর করা যায় তা অন্যান্য ব্যবহারযোগ্য জিনিসের প্রতিযোগী হিসেবে কাজ করে এবং মানুষের জন্য ভাল। আর এজন্যই প্যানহেন্ডেল এ বিভিন্ন জায়গা থেকে গরুর গোবর সংগ্রহ করা হচ্ছে।
প্রক্রিয়াটা পর্যালোচনা ঃ অধিক ব্যবহারযোগ্য তাপ এবং শক্তি ব্যবহার করার জন্য গবেষকরা উন্নত প্রক্রিয়া উদ্ভাবনের চেষ্টা করছে। খামারের গরু থেকে গোময় সংগ্রহ করে এর উপর ভবিষ্যৎ গবেষণা করা হবে। সুইটেন বলেন, গোবর এর জন্য ভিন্ন একটি প্রক্রিয়ার প্রয়োজন আছে। শক্তি সংগ্রহ করার জন্য। প্যানহেন্ডেল এর ১০০ একর জমিতে প্রায় ৫ মিলিয়ন গরুর বাছুর বিচরণের জন্য আসে। সেখান থেকে প্রায় বিলিয়ন পাউন্ড পরিমাণ গোবর সংগ্রহ করা যায়। এই গোবরগুলোকে পেন-এ সংগ্রহ করে বিভিন্ন কক্ষে রাখা হয়। একসেট পেন-এ ছাই (ভষ্ম) দেওয়া হয়। অন্য কক্ষে আবর্জনার সাথে রাখা হয়। গবেষণায় দেখা গেছে যে, ছাই দেওয়া গোবর থেকে অব্যবহৃত উপাদান পাওয়া যায় ২০ ভাগ। আর আবর্জনাযুক্ত গোবর থেকে অব্যবহৃত উপাদান পাওয়া যায় ৫৯ ভাগ। তাই বলা যায়, পূর্বোক্তভাবে শক্তি উৎপাদনের ক্ষেত্রে গোবর এর ব্যবহার উল্লেখযোগ্য ।
সুইটেন বলেন, গোবর মুক্ত সাড়ে ৪ ভাগের ৩ ভাগ শক্তি থাকে যার মূল্যমান কয়লার সমান। তিনি আরো বলেন, এভাবে সারকে ব্যবহার করে অনেক নবায়নযোগ্য শক্তি পাওয়া সম্ভব যা আমাদের পরিবেশের জন্য মঙ্গল এবং সাশ্রয় উভয়ই এনে দিবে।

হরে কৃষ্ণ ।


চৈতন্য সন্দেশ অ্যাপ ডাউনলোড করুন :https://play.google.com/store/apps/details?id=com.differentcoder.csbtg


Hare Krishna Thanks For Reading

 

মাসিক চৈতন্য সন্দেশ  এপ্রিল ২০১০ হতে প্রকাশিত

সম্পর্কিত পোস্ট

‘ চৈতন্য সন্দেশ’ হল ইস্‌কন বাংলাদেশের প্রথম ও সর্বাধিক পঠিত সংবাদপত্র। csbtg.org ‘ মাসিক চৈতন্য সন্দেশ’ এর ওয়েবসাইট।
আমাদের উদ্দেশ্য
■ সকল মানুষকে মোহ থেকে বাস্তবতা, জড় থেকে চিন্ময়তা, অনিত্য থেকে নিত্যতার পার্থক্য নির্ণয়ে সহায়তা করা।
■ জড়বাদের দোষগুলি উন্মুক্ত করা।
■ বৈদিক পদ্ধতিতে পারমার্থিক পথ নির্দেশ করা
■ বৈদিক সংস্কৃতির সংরক্ষণ ও প্রচার। শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।
■ শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।