(জন্মাষ্টমী) পুতনা রাধারাণীকে ব্রজে নিয়ে এসেছিলেন (পর্ব-৯)

প্রকাশ: ২ আগস্ট ২০২০ | ৫:৫৫ পূর্বাহ্ণ আপডেট: ২ আগস্ট ২০২০ | ৫:৫৫ পূর্বাহ্ণ

এই পোস্টটি 441 বার দেখা হয়েছে

(জন্মাষ্টমী) পুতনা রাধারাণীকে ব্রজে নিয়ে এসেছিলেন (পর্ব-৯)

ললিত মাধবের প্রথম নাটকের ৪র্থ থেকে ৪১ নং শ্লোকে শ্রীল রূপ গোস্বামী বর্ণনা করেন যে, পুতনা শ্রীমতি রাধারাণীকে ব্রজে নিয়ে এসেছিলেন। তিনি লিখেছেন যে, বিন্দ্যা পর্বতের রাজা কঠোর তপস্যা করেছিলেন দুটি কন্যা সন্তান প্রাপ্ত হওয়ার জন্য যারা কৃষ্ণকে বিবাহ করবেন। তার সেই মনোবাসনা পূরণের জন্য, ব্রহ্মা দেবী যোগমায়াকে অনুরোধ করেছিলেন চন্দ্রভানুর পত্নী এবং বৃষভানু মহারাজের পত্নীর কন্যাদের বিন্দ্রার রাজার পত্নীর গর্ভে স্থানান্তরের জন্য। এই দুই কন্যা পরবর্তীতে বিন্দ্যার রাজার পত্নীর কন্যা হয়েছিলেন, যারা হলেন শ্রীমতি রাধারাণী ও চন্দ্রাবলী। কংসের নির্দেশ ছিল পুতনা যেন শুধু ছোট ছোট বালকদের হত্যা করেন। আর ছোট বালিকাদের অপহরণ করতে হবে। এভাবে পুতনা যখন বিন্দ্যার পর্বতসমূহের পাশ দিয়ে যাচ্ছিলেন তখন সুন্দর দুইজন বালিকাদের দেখতে পেলেন এবং পুতনা তাদের অপহরণ করে তাদেরকে বহন করে ব্রজে নিয়ে এসেছিলেন। যখন তিনি উড়ে যাচ্ছিলেন তখন বিন্দ্যার পর্বতের প্রধান পূজারী একটি অসুর নিধন মন্ত্র জপ করছিলেন। এটি শ্রবণ করে পুতনা ভীত হয়েছিলেন এবং প্রথম কন্যা চন্দ্রাবলীকে ফেলে দিলেন। চন্দ্রাবলী তখন একটি নদীর স্রোতপ্রবাহে পতিত হয়েছিল। যখন কৃষ্ণ পুতনাকে হত্যা করেন, পৌর্ণমাসি নিরবে রাধারাণীসহ আরো পাঁচজন বালিকাকে পুতনার কোল থেকে উদ্ধার করেন এবং ব্রজের বিভিন্ন স্থানে রাখেন। একটি গোপন স্থানে পৌর্ণমাসি রাধারাণীকে যশোদার ধাত্রী মুখরের কাছে তুলে দিয়ে বললেন, “হে জ্যেষ্ঠ, এই নিন আপনার জামাতা বৃষভানুর কন্যা।”

সূত্র: মাসিক চৈতন্য সন্দেশ 
মাসিক চৈতন্য সন্দেশ ও ব্যাক টু গডহেড এর ।। গ্রাহক ও এজেন্ট হতে পারেন
প্রয়োজনে : 01820-133161, 01758-878816, 01838-144699
সম্পর্কিত পোস্ট

‘ চৈতন্য সন্দেশ’ হল ইস্‌কন বাংলাদেশের প্রথম ও সর্বাধিক পঠিত সংবাদপত্র। csbtg.org ‘ মাসিক চৈতন্য সন্দেশ’ এর ওয়েবসাইট।
আমাদের উদ্দেশ্য
■ সকল মানুষকে মোহ থেকে বাস্তবতা, জড় থেকে চিন্ময়তা, অনিত্য থেকে নিত্যতার পার্থক্য নির্ণয়ে সহায়তা করা।
■ জড়বাদের দোষগুলি উন্মুক্ত করা।
■ বৈদিক পদ্ধতিতে পারমার্থিক পথ নির্দেশ করা
■ বৈদিক সংস্কৃতির সংরক্ষণ ও প্রচার। শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।
■ শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।