ওয়ার্ল্ড বুকে ইস্‌কনের বিশ্বরেকর্ড

3
17994

পাদসেবন ভক্ত দাস: ভারতের নয়া দিল্লীর ইন্দিরা গান্ধী ইন্ডোর স্টেডিয়ামে গত ৬ অক্টোবর আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ (ইস্‌কন) “উদ্‌গার-পরোপকারিতা ও আনন্দের বর্হিঃপ্রকাশ” শীর্ষক একটি বার্ষিক মেগা ইয়ুথ ফেস্টিভ্যালের আয়োজন করা হয়েছিল। এটির থিম ছিল “মাদকাসক্তি মুক্ত ভারতকে মাদকাসক্তি মুক্ত করা।” লন্ডনের ওয়ার্ল্ড বুক রেকর্ড কর্তৃক বিশ্বের বৃহত্তম মাদকাসক্তি সচেতনতা উৎসবের ‘বিশ্বে রেকর্ডের’ পুরস্কার প্রাপ্ত হয়। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ভারতের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ড. হর্ষবর্ধন এবং ইস্‌কন জিবিসি শ্রীমৎ গোপাল কৃষ্ণ গোস্বামীসহ প্রমুখ।
১৫ হাজারের অধিক দর্শক উপস্থিত থেকে এই মনোমুগ্ধকর অনুষ্ঠানটি উপভোগ করেন। এই অনুষ্ঠানটি আধুনিক বিনোদনের মিশ্রণে আয়োজিত হয়েছিল যেখানে সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও স্বাস্থ্যসেবাসহ নানামুখী ইভেন্টের সন্নিবেশ ছিল। যেমন- ফিল ক্রিউর ‘হিপ-ফপ’, মাধব রক ব্র্যান্ডের ‘ফ্যাশন মিউজিক’, নীতিশ ভারতীর ‘স্যান্ড আর্ট পারফরম্যান্স’ এবং ইস্‌কনের নেতৃত্ব স্থানীয় ভক্তবৃন্দের জ্ঞানগর্ভ আলোচনা প্রভৃতি। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন শ্রীমৎ গোপাল কৃষ্ণ গোস্বামী, শ্রীমৎ লোকনাথ স্বামী, আমেরিকা হতে আগত শ্রীপাদ অনুত্তম দাস, জার্মানী হতে আগত শ্রীমৎ শচীনন্দন স্বামী। একাডেমিক দিক হতে আলোকপাত করেন দিল্লীর সাইকিয়াট্রি এন্ড ন্যাশনাল ড্রাগ ডিপেন্ডন্স ট্রিটমেন্ট সেন্টারের (এআইআইএস) প্রধান ড. আর খান্না এবং ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ সোশ্যাল ডিফেন্সের পরিচালক ড. বীরেন্দ্র মিশ্র। শ্রীমৎ গোপাল কৃষ্ণ গোস্বামী, ইস্‌কনের প্রতিষ্ঠাতা আচার্য শ্রীল প্রভুপাদ কর্তৃক ১৯৬০ এর দশকে আমেরিকার হাজার হাজার মাদকাসক্ত যুবক-যুবতীদের অত্যন্ত সাফল্যের সহিত মাদকের ছোবল হতে মুক্ত করে পবিত্র জীবন যাপনে উদ্বুদ্ধকরণের অবদানকে তুলে ধরেন। অনুষ্ঠান উপলক্ষে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্রমোদীর প্রেরিত একটি প্রশংসাসূচক পত্র দর্শকমন্ডলীর সম্মুখে পড়ে শোনানো হয়। ড. হর্ষ বর্ধন বিশ্বব্যাপী ভারতীয় সংস্কৃতির যথাযথ প্রচারে ইস্‌কনের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, “ইস্‌কন হলো এমন একটি সংগঠন যা আজকের বিশ্বে খুবই জরুরী দরকার।”
ড. বীরেন্দ্র মিশ্র যুবক-যুবতীদের মাদকাসক্তির ভয়াবহতার কথা তুলে ধরে এক্ষেত্রে কার্যকরী অথচ স্বেচ্ছায় মাদকের নেশা হতে মুক্তির জন্য ইস্‌কনের অবদানের প্রশংসা করেন। উদ্‌গার ফেস্টিভ্যালটির পরিচালক শ্রীপাদ সুন্দর গোপাল দাস (পরিচালক-ইস্‌কন ইয়ুথ ফোরাম, দিল্লী) বলেন, “বদ অভ্যাস হতে তরুণ-তরুণীদের উদ্ধারে ইস্‌কন প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এ অনুষ্ঠানটি হল তারই অভিব্যক্তি যাতে করে যুবক-যুবতীরা এই ভয়ংকর মহামরী হতে মুক্ত হতে পারে।” এই অনুষ্ঠানে ‘দি প্রিন্স ডান্সগ্রুপ’ তাদের সেরা পারফরমান্স প্রদর্শন করেন। নীতিশ ভারতী মাদকাসক্ত তরুণ-তরুণীর ভয়াবহতা ও শ্রীমদ্ভগবতগীতা যথাযথ এর কল্যাণে উদ্ধারের চিত্র তুলে ধরেন। এই অনুষ্ঠানে আন্তঃকলেজ মাদকাসক্তি সচেতনতা কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন হয়। অনুষ্ঠানের শেষে সবাই মনোমুগ্ধকর ও প্রাণোচ্ছ্বল ‘হরেকৃষ্ণ’ মহামন্ত্র কীর্তন ও নৃত্যে মেতে উঠেন। হরেকৃষ্ণ!

3 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here