একটি সত্য ঘটনা : যমদূতদের ‘শ্রীমদ্ভগবদ্‌গীতা যথাযথ’ প্রচার

প্রকাশ: ২৪ মার্চ ২০২৩ | ৫:৩৬ পূর্বাহ্ণ আপডেট: ২৪ মার্চ ২০২৩ | ৫:৩৬ পূর্বাহ্ণ

এই পোস্টটি 94 বার দেখা হয়েছে

একটি সত্য ঘটনা : যমদূতদের ‘শ্রীমদ্ভগবদ্‌গীতা যথাযথ’ প্রচার

শ্রীমৎ জয়পতাকা স্বামী: এক ব্যক্তি বুক স্টলে এসে শ্রীমদ্ভগবদ্গীতা যথাযথ চেয়েছেন। গীতা তার হাতে দেওয়ার পর তিনি অঝোরে কাঁদতে শুরু করেছেন। স্টলের ভক্তটি তার কাছে জিজ্ঞাসা করেন, “আপনি কাঁদছেন কেন?” তারপর তিনি বলতে শুরু করেন- “আমি মারা গিয়েছিলাম, যমরাজ আমাকে ফেরত পাঠিয়েছেন, কারন যমদূতেরা ভুল আত্নাকে নিয়ে গিয়েছিল। যমদূতেরা আমাকে ফেরত রেখে গেছে। যাবার সময় একজন যমদূত আমাকে বলেছে, “তুমি কোনো ইস্‌কন মন্দিরে যাও, ওদের কাছে একটা শ্রীমদ্ভগবদ্গীতা যথাযথ আছে, ওইটা নাও; ঐ শ্রীমদ্ভগবদ্গীতা যথাযথ তোমার কাছে থাকলে আমরা আর তোমাকে বিরক্ত করতে আসবো না! তোমাকে আর যমালয়ে আস্তে হবে না।” ততক্ষণে শবদেহ খাটিয়ায় তুলে গ্রামের লোকজন তাকে শশ্মানে নিয়ে যাচ্ছিলো, হঠাৎ খাটিয়ার উপর তাকে উঠে বসতে দেখে সবাই ভূত ভেবে ভয় পেয়ে গেলো। পরে তিনি বললেন, “আমি ভূত না, আমি ফিরে এসেছি, তোমরা ভয় পেয়ো না।” সবাইকে শান্ত করে গুরুমহারাজ বলেন- এতোদিন তো ভক্তিবিজয় ভাগবত স্বামী মহারাজ প্রভুপাদের গ্রন্থ প্রচার করছিলো, এখন যমরাজ এবং তার কোম্পানির লোকেরাও শ্রীমদ্ভগবদ্গীতা যথাযথ প্রচার শুরু করে দিয়েছেন।
সূত্র: শ্রীমৎ জয়পতাকা স্বামী গুরুমহারাজ,

মায়াপুর; ২৬ নভেম্বর ২০২২


 

চৈতন্য সন্দেশ  জানুয়ারি-২০২৩ প্রকাশিত

সম্পর্কিত পোস্ট

‘ চৈতন্য সন্দেশ’ হল ইস্‌কন বাংলাদেশের প্রথম ও সর্বাধিক পঠিত সংবাদপত্র। csbtg.org ‘ মাসিক চৈতন্য সন্দেশ’ এর ওয়েবসাইট।
আমাদের উদ্দেশ্য
■ সকল মানুষকে মোহ থেকে বাস্তবতা, জড় থেকে চিন্ময়তা, অনিত্য থেকে নিত্যতার পার্থক্য নির্ণয়ে সহায়তা করা।
■ জড়বাদের দোষগুলি উন্মুক্ত করা।
■ বৈদিক পদ্ধতিতে পারমার্থিক পথ নির্দেশ করা
■ বৈদিক সংস্কৃতির সংরক্ষণ ও প্রচার। শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।
■ শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।