ইস্‌কন সদস্যরা কানাডায় জাতিসংঘের জীববৈচিত্র্য সম্মেলনে

প্রকাশ: ২২ মার্চ ২০২৩ | ৭:৩৯ পূর্বাহ্ণ আপডেট: ২২ মার্চ ২০২৩ | ৭:৩৯ পূর্বাহ্ণ

এই পোস্টটি 106 বার দেখা হয়েছে

ইস্‌কন সদস্যরা কানাডায় জাতিসংঘের জীববৈচিত্র্য সম্মেলনে

ইস্‌কন নিউজ: কানাডার মন্ট্রিলে জাতিসংঘ কর্তৃক আয়োজিত জীব বৈচিত্র বিষয়ক সম্মেলনে ইস্কনের সদস্যবৃন্দ অংশগ্রহণ করেছে। এই সম্মেলনের মুখ্য উদ্দেশ্য ছিল আগামী প্রজন্মের জন্য পরিবেশকে সুরক্ষিত রাখতে প্রয়োজনীয় পরিকল্পনা গ্রহণ করা। উক্ত সম্মেলনে যেসব ইস্কনের সদস্যবৃন্দ উপস্থাপনা করেছেন তাঁরা হলেন গোপাল লীলা দাস, যিনি আন্তঃধর্মীয় উপদেষ্টা কাউন্সিলের কো-চেয়ারম্যান এবং গোবর্ধন ইকো ভিলেজ থেকে রাস ভক্তি দেবী দাসী এবং ইস্কন কমিউনিকেশনের পরিচালক অনুত্তম দাস প্রভু।১৯৯২ সালে ১৫০ জন সরকারি নেতাদের নিয়ে সর্বপ্রথম এই “রিও আর্থ সামিট” সম্মেলন আয়োজিত হয়েছিল। এর মূল লক্ষ্য হলো পরিবেশ সংরক্ষণ করা, বিভিন্ন জৈবিক উপাদান সমূহের যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করা এবং প্রাকৃতিক সম্পদের সুষম বন্টন নিশ্চিত করা। ইস্্কন সদস্যবৃন্দ বিশ্বব্যাপি ইস্কনের পরিবেশবান্ধব বিভিন্ন প্রকল্পসমূহ নিয়ে আলোচনা করেন। গোবর্ধন ইকো ভিলেজের গবেষক “রাস ভক্তি দেবী দাসী” (ড. অদিতি মিশাল) সকলের কাছে

ইস্‌কনের ৬৪ টি পরিবেশবান্ধব কমিউনিটির পরিবেশ সংরক্ষণের কার্যক্রমসমূহ তুলে ধরেন। অনুত্তম দাস প্রভু বিশেষভাবে গোবর্ধন ইকো ভিলেজ, কৃষ্ণ ভেলি (হাঙ্গেরি), নিউ বৃন্দাবন, আমেরিকার গীতা নগরীর প্রকল্পসমূহের উপর আলোকপাত করেন। তাঁরা শ্রীল প্রভুপাদের “সরল জীবন- উচ্চ চিন্তনের” নীতি সম্পর্কেও আলোচনা করেন। এই প্রথম বছর আন্তঃধর্মীয় গোষ্ঠীর এত বড় উপস্থিতি ছিল, যা মূলত গোপাল লীলা দাস দ্বারা সমন্বিত হয়েছিল, যিনি ভূমি, গ্লোবাল এবং একটি সংস্থার প্রধানও, যা বৃহত্তর হিন্দুদের মধ্যে হিন্দু মন্দিরগুলির মধ্যে টেকসইতাকে উন্নীত করতে সাহায্য করার উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করে।


 চৈতন্য সন্দেশ জানুয়ারি-২০২৩ প্রকাশিত 

সম্পর্কিত পোস্ট

‘ চৈতন্য সন্দেশ’ হল ইস্‌কন বাংলাদেশের প্রথম ও সর্বাধিক পঠিত সংবাদপত্র। csbtg.org ‘ মাসিক চৈতন্য সন্দেশ’ এর ওয়েবসাইট।
আমাদের উদ্দেশ্য
■ সকল মানুষকে মোহ থেকে বাস্তবতা, জড় থেকে চিন্ময়তা, অনিত্য থেকে নিত্যতার পার্থক্য নির্ণয়ে সহায়তা করা।
■ জড়বাদের দোষগুলি উন্মুক্ত করা।
■ বৈদিক পদ্ধতিতে পারমার্থিক পথ নির্দেশ করা
■ বৈদিক সংস্কৃতির সংরক্ষণ ও প্রচার। শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।
■ শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর নির্দেশ অনুসারে ভগবানের পবিত্র নাম কীর্তন করা ।
■ সকল জীবকে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কথা স্মরণ করানো ও তাঁর সেবা করতে সহায়তা করা।